বাংলা ব্যাকরণ

সমৃদ্ধ বাংলা ভাষায় অসংখ্য বানান নিয়েই আমাদের মধ্যে বিভ্রান্তি রয়েছে। যা কোনো ক্ষেত্রে আমাদের বানানের ব্যবহার না জানার কারণে হয়ে থাকে। আবার কিছু বানান বিভ্রান্তি ব্যকরণ গঠিত কারণেও হয়ে থাকে। সেলিম রেজার ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশিত, বাংলা বানান নিয়ে বিভ্রান্তিকর কিছু পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পাওয়ার তথ্যমূলক পোস্টের দ্বিতীয় পর্ব আত্মপ্রকাশে প্রকাশ করা হচ্ছে। বাকী পর্বগুলো ধীরে ধীরে প্রকাশ করা হবে।

বাংলা বানান বিভ্রান্তি এবং সংশোধন । সেলিম রেজা । পর্ব – ০২

উল্লেখ্য যে, আমি কোনো ভাষাবিদ বা বানান বিশেষজ্ঞ নই। ভাষা ও বানান নিয়ে লিখিত বিভিন্ন, বইপুস্তক, জার্নাল থেকে সংগ্রহ এবং গুণীজনদের সাথে আলোচনা করে আপনাদের সুবিধার্থে এই পোস্টটি সাজানোর চেষ্টা করেছি। কারো কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট বক্সে করতে পারেন। যথাযথ উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো। এই পোস্টে কি কি জানতে পারবেন তার একটি তালিকা নিচে দেয়া হলো –

  • জ্বি এবং হ্যাঁ এর ব্যবহার
  • নীচ এবং নিচ এর ব্যবহার
  • ভাল এবং ভালো এর ব্যবহার
  • ভারি এবং ভারী এর ব্যবহার
  • লক্ষ এবং লক্ষ্য এর ব্যবহার
  • হত এবং হতো নিয়ে বিভ্রান্তি
  • জোর এবং জোড় এর ব্যবহার
  • বেশি এবং বেশী এর ব্যবহার

জ্বি এবং হ্যাঁ এর ব্যবহার

হ্যাঁ
হ্যাঁ লিখিতে গিয়ে অনেকেই নিজেকে গরীব মনে করে চন্দ্রবিন্দু দিতে চায় না। দিয়ে দিন ভাই, হ্যাঁ লিখতে অবশ্যই চন্দ্রবিন্দু দিতে হবে।
জ্বি
জ্বি বানান লেখার সময় অনেকেই বিভ্রান্তির ভেতর পড়ে যান। তারা জি, জী, জ্বী, জিঁ, জীঁ, জ্বিঁ,জ্বীঁ ইত্যাদি লিখে থাকেন। জেনে নিন, সঠিক বানান হবে- জ্বি।
ধরুন কেউ আপনাকে ডাকছে। এমন ক্ষেত্রে বাংলা একাডেমির মতে লিখুন –
‘জি হ্যাঁ।’

নীচ এবং নিচ এর ব্যবহার

নিচ = নিচু
নীচ = জঘন্য
★ জারা তিনতলা থেকে নিচতলায় নেমে এসেছে।
★ লোকটি ছিলেন খুবই নীচ প্রকৃতির মানুষ।
আশাকরি নিচু লিখতে গিয়ে আর নীচু হবেন না!

ভাল এবং ভালো এর ব্যবহার

কাল এবং কালো
ভাল এবং কাল একক শব্দ হিসাবে সঠিক। ‘ভাল’ বা ভাল্ শব্দের মুল অর্থ কপাল বা ভাগ্য এবং ‘ভালো’ শব্দের অর্থ গুন। এটি বিশেষণ। তাই গুন বুঝার বিভ্রান্তি এড়াতে ও-কার যোগ করে লেখাই শ্রেয়। আবার যখন অন্য কোনো শব্দের সাথে যোগ হবে তখন আর সিঙ্গেল থাকবে না। তখন অবশ্যই মালা পরাতে হবে। অর্থাৎ ো ব্যবহার করতে হবে।
যেমন- ভাল+বাসা= ভালোবাসা
কাল+জাম= কালোজাম
কাল+বাজার= কালোবাজার
ভালো মন্দ , ভালো মানুষ, কালো কাক।


ভারি এবং ভারী এর ব্যবহার

ভারি = খুব
ভারী = ওজনদার
শুধুমাত্র ওজন বুঝাতেই “ভারী” শব্দটি ব্যবহার হবে।
বাকী সবক্ষেত্রেই “ভারি” শব্দটি ব্যবহার করতে হবে।
যেমন-
★ মেয়েটি ভারি সুন্দর দেখতে।
★ জুলেখা বাদশার মেয়ে। তাহার ভারি অহংকার।
★ ভারি বেয়াদব ছেলে তো!
# ক্লাসের ভারী ভারী বই পড়তে সুমনার ভারি কষ্ট হয়।
# এতো ভারী বাক্স আমি নিতে পারবো না।

লক্ষ এবং লক্ষ্য এর ব্যবহার

লক্ষ = লাখ, দৃষ্টি
লক্ষ্য = উদ্দেশ্য
★ মাহফুজা তার জীবনের লক্ষ্য পূরণে বদ্ধপরিকর।
★ বাচ্চাটার দিকে একটু লক্ষ রেখো।
★ ওদিকে লক্ষ করো।
★ এখানে এক লক্ষ টাকা আছে।

হত এবং হতো নিয়ে বিভ্রান্তি

“হত” শব্দটির অর্থ নিহত, মৃত, বধপ্রাপ্ত, ব্যাহত, লুপ্ত।
অর্থের বিভ্রান্তি দুর করার জন্য এই সবক্ষেত্রে “হতো” শব্দটি ব্যবহার করাই যুক্তিযুক্ত।
যেমন-
★ কাজ করা হতো।
★ টাকা প্রদান করা হতো।
★ এমন হলে কেমন হতো।

জোর এবং জোড় এর ব্যবহার

জোর= শক্তি
জোড়= যুগল
★ সামিরা মামুনকে জোরে ধমক দিলো।
★ সে করজোড়ে ক্ষমা চেয়েছিল।
★ বেশি জোরাজুরি করলে কারো মন পাবে না।
★ ৩৯ একটি বেজোড় সংখ্যা।
★ সে পরীক্ষায় বড়জোড় পাশ নাম্বার পাবে।

বেশি এবং বেশী এর ব্যবহার

বেশি= খুব, অনেক
বেশী= বেশধারী
★ বেশি চালাকি করিস না।
★ তুমি একটু বেশি বেশি ফান করো।
★ সে একজন ভদ্রবেশী শয়তান।
★ লোকটি ছদ্মবেশী ছিল।

বাংলা বানান বিভ্রান্তি এবং সংশোধন । সেলিম রেজা । পর্ব – ০৩

বাংলা বানান নিয়ে বিভ্রান্তির হার বেশ ভয়াবহ। সেখান থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি দিবে সেলিম রেজার সহজ বানান শিক্ষা। পরবর্তী পর্বগুলো ক্রমানুসারে প্রকাশ করা হবে।

Facebook