আঙ্গারীঘাট বুক রিভিউ । কামরুন্নাহার দিপা । রিভিউয়ার – মৌসুমী মৌ

 আঙ্গারীঘাট বুক রিভিউ । কামরুন্নাহার দিপা । রিভিউয়ার – মৌসুমী মৌ

আঙ্গারীঘাট-বুক-রিভিউ-কামরুন্নাহার-দিপা

কামরুন্নাহার দিপা রচিত ‘আঙ্গারীঘাট’ বইটির রিভিউ নিয়ে, মৌসুমী মৌ ‘নহলী গ্র্যান্ড বুক রিভিউ প্রতিযোগিতা’য় অংশ নিয়ে অস্টম স্থান অর্জন করেন। মৌসুমী মৌয়ের ‘আঙ্গারীঘাট বুক রিভিউ’ টি নিয়েই আত্মপ্রকাশের এই আয়োজন।

বই: আঙ্গারীঘাট
লেখিকা: কামরুন্নাহার দিপা
মুদ্রিত মূল্য: ২৭০/- টাকা
বর্তমান বিক্রয় মূল্যঃ ১৬০ টাকা (৪১% ছাড়) (এপ্রিল, ২০১৯)।
অনলাইন প্রাপ্তিস্থান: নহলী বুকস
রিভিউয়ারঃ মৌসুমী মৌ

আঙ্গারীঘাট বুক রিভিউ । কামরুন্নাহার দিপা । কাহিনী সংক্ষেপ

কানাডা প্রবাসী মনিরা স্বামী সন্তান নিয়ে গ্রামে আসে পরিবারের সবার সাথে কিছুদিন থাকবে বলে। আসার পরেই তার মনে হয় আঙ্গারীঘাটের কথা। যার সাথে জড়িয়ে আছে তার জীবনের এক গোপন সত্য।যা আজও তাকে স্বাভাবিক হতে দেয়নি।তাই সে চলে যায় নদীটির কাছে আর সেখানেই দেখে মেলে গ্রামের আরেক মেয়ে/বউ বাশেরার সাথে,যার সাথেও এই নদী জড়িয়ে আছে ওতপ্রোতভাবে।
বাশেরা আর মনিরা প্রায় সমবয়সী দুই নারী।একজন কানাডা প্রবাসী আরেকজন এই নদীর ধারেই ঘর বেঁধে আছেন।

দুজনেরই বেড়ে ওঠা আঙ্গারীঘাটের পাড়ে।একজন প্রাচুর্যের মধ্যে বড় হওয়া, বেড়ে ওঠা, বিত্ত বৈভবে থাকা একটা মানুষ।অন্যদিকে নদীর পাড়েই যার বেড়ে ওঠা, নদীই ছিলো যার জীবিকার প্রধান উৎস এমন একজন।ভিন্ন দুটি মানুষ,ভিন্ন পরিবেশে বড় হওয়া কিন্তু এই আঙ্গারীঘাট তাদেরকে এক জায়গাতে নিয়ে এসছে।দুজনের অনুভূতির সমন্বয় ঘটিয়েছে।

আঙ্গারীঘাট-বই-কামরুন্নাহার-দিপা -Angari-Ghat-book-kamrunnahar-dipa
আঙ্গারীঘাট – কামরুন্নাহার দিপা

আঙ্গারীঘাট বুক রিভিউ | পাঠ প্রতিক্রিয়া

বইটিতে একেবারে শুরু থেকেই লেখিকা গল্পের টান ধরে রেখেছেন। গল্পের কোথাও মনে হয়নি যে লেখিকা গল্পের খেই হারিয়ে ফেলেছেন। সাধারণত এরকম একটা স্থানকে কেন্দ্র করে গল্প লিখলে সেই গল্পটি একঘেঁয়েমি হয়।কিন্তু এখানে এরকমটা ঘটে নি,বইটি পড়তে শুরু করলে পাঠকের এমনিতেই জানতে ইচ্ছে হবে এরপর কি?এগিয়ে যাবে আগ্রহ নিয়ে।লেখিকা কি সুন্দর স্মুথলি এগিয়ে নিয়ে গেছেন গল্পটি!

মনিরার কথা যখন পড়েছি মনে হয়েছে যেন আমার নিজের কথাই পড়ছি।যেন লেখিকা আমার কথাই বলেছেন। আর বাশেরা চরিত্রটি এমন যাদেরকে গ্রামে মুখরা রমণী বলা হয়,যারা সবসময় মুখের উপর উচিত জবাব দিয়ে দেয়,তার পরিবারকে আগলে রাখে,কোন অন্যায় মেনে নিতে চায় না।যার নিজের কাজের পিছনে যুক্তি থাকে, অন্যের কথায় যে নিজের অবস্থান থেকে কখনে সরে আসেনা।
যে গ্রামে বড় হওয়া সত্ত্বেও গ্রামের আর পাঁচ দশটা মানুষের থেকে আলাদা।যার জীবনবোধটাই আলাদা হয়।



এছাড়া,মিঠাই,সামিরা,সাজিদ,বাবুল,শাপলা, শালুক,মনিরার মা,কালো দাদি,কিংবা আরো যারা আছে চাইলে তাদের সবাইকে নিয়ে কথা বলা যেতে পারে। কিন্তু এত কথা বললে রিভিউ আরো অনেকটা বড় হয়ে যাবে।

প্রতিটি জিনিস সুন্দর করে উপস্থাপন করা। মুগ্ধ করেছে ব্যাপারটা।
সবকিছু যেন চোখের সামনে ভেসে উঠছিলো। কি সহজ,স্বাভাবিক! ঘাটের কথা পড়তে পড়তে ঘাট যখন ভাগ করার সময় হয়,সবাই যখন রুখে দাড়ায় ঠিক যেন ওদের সমপরিমাণ খারাপ আমারও লাগে মনে হয় ওখানে ওদের সাথে আমিও আছি।

গল্পটি যেন আঙ্গারীঘাটেরই গল্প! নামের সাথে এত সুন্দর সামঞ্জস্যতা! লেখিকা অল্প পরিসরের মধ্যে ভালোভাবে কিছু জিনিস তুলে ধরেছেন। সাংবাদিকদের সম্পর্কে কিছু ধারনা দিয়েছেন।এছাড়া রাজনীতি, যৌতুক প্রথা, বাল্য বিবাহ,গ্রামের মানুষের আচরন এগুলো সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন।

একটু ব্যক্তিগত কথা বলি, আরাজ, আফরাকে ওদের নানা মাছ নিয়ে যে গল্পটা বলেছে আমরাও ছোটবেলায় মামা নানার কাছ থেকে এরকম গল্প শুনে বড় হয়েছি। গ্রামের মানুষের জবানিতে লেখিকা মেহেরপুরের যে আঞ্চলিক ভাষাটা ব্যবহার করেছেন সেটা আমার ব্যক্তিগতভাবে বেশ ভালো লাগে।

আঙ্গারীঘাট! আঙ্গারীঘাটের আরেক নাম ছেউটি।যা কিনা মাথাভাঙার উপশাখা।মাথাভাঙা হচ্ছে চুয়াডাঙ্গার উপর দিয়ে বয়ে চলা একটা নদী। কোন বইয়ে যদি পরিচিত কিছু থাকে তার প্রতি আলাদা ভাল লাগা তৈরি হয়ে যায়।পরিচিত হবার সুবাদে তা যেন মনের মধ্যে আলাদা জায়গা করে নেয়।এই বইটিতেও সেরকমটা ঘটেছে।

বইয়ে কোন বানান ভুল বা অন্য কোন সমস্যা তেমন আমার চোখে পড়েনি। আসলে হয়তো নেইও। নতুন লেখিকা হিসেবে শুরুটা বেশ ভালোই বলা চলে। এটা আগাগোড়া একটা সামাজিক উপন্যাস।চলমান সামাজিক গল্প! আমি জানি না কোন শহুরে মানুষের এই বইটি কেমন লাগবে কিন্তু গ্রামে বড় হওয়া সবার মন যে অনায়াসেই জয় করতে পারবে একথা নিশ্চিত হয়ে বলতে পারি।কেননা নদীমাতৃক এই দেশে প্রত্যেকটি গ্রামে একটা করে নদী থাক বা না থাক কোন খাল,বিল,বড় পুকুর এগুলোর সাথে কোন গ্রামের মানুষের সম্পর্ক নেই বা এ নিয়ে বিরোধ বাঁধে না এমন কোন গ্রাম পাওয়া দুষ্কর।

এত পরিচিত একটা গল্প আর এমনভাবে উপস্থাপন যা পড়লে মনে হয়না কারো খারাপ লাগতে পারে।যে গল্পের শেষ পর্যন্ত না গেলে শুরু পড়ে কেউ বুঝতে পারবে না বা ধারনা করতে পারবে না যে এই বইয়ের শেষে কি আছে বা কি ঘটেছে?

বইটির অন্যান্য তথ্য:
————————-
মুদ্রণ মূল্যঃ ২৭০/- টাকা
বিক্রয় মূল্যঃ ১৬০/- টাকা (৪১% ডিসকাউন্টে)
প্রাপ্তিস্থানঃ নহলী বুকস

আত্মপ্রকাশ সম্পাদক

http://attoprokash.com

আত্মপ্রকাশে অপ্রকাশিত গল্প এবং বুক রিভিউ এবং প্রবন্ধ প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন (ইমেইল-attoprokash.blog@gmail.com) অথবা ফেইসবুক পেইজ ইনবক্স। সর্বনিম্ন ১০০০ শব্দ হতে যেকোনো ঊর্ধ্ব সীমার ছোট গল্প গ্রহণযোগ্য। আপনার গল্প আত্মপ্রকাশ বিচারকদের দ্বারা নির্বাচিত হলে আপনাকে জানানো হবে এবং তা সরাসরি প্রকাশ করা হবে আত্মপ্রকাশে। আপডেট জানতে ফেইসবুক গ্রুপে সক্রিয় থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *